হোম ফিচার অ্যাকাউন্টে ছিল ১২৬ টাকা, তুলে গিয়ে দেখেন আছে আড়াই কোটি!

অ্যাকাউন্টে ছিল ১২৬ টাকা, তুলে গিয়ে দেখেন আছে আড়াই কোটি!

প্রতিবেদক Fahim Faysal
0 মন্তব্য

বিহারিলাল পরীক্ষা করার জন্য ব্যাংককর্মীবে অ্যাকাউন্ট বই দিয়ে দেখতে বলেন কত টাকা আছে! ‘জন ধন’ অ্যাকাউন্ট থেকে ১০০ টাকা তোলার জন্য ব্যাংকে গিয়েছিলেন তিনি। টাকাও তোলেন। কিন্তু তার পরের ঘটনায় রীতিমতো ভিরমি খাওয়ার অবস্থা তার। কেন?

এখন যেহেতু ব্যাংকের সঙ্গে গ্রাহকের ফোন নম্বর নথিভুক্ত করা থাকে, তাই ব্যাংক অ্যাকাউন্টে কোনও লেনদেন হলেই তার একটা বার্তা ব্যাংকের তরফে গ্রাহককে এসএমএস করে পাঠিয়ে দেওয়া হয়। নিয়মমাফিক বিহারিলালও টাকা তোলার পর সেই এসএমএস পেয়েছিলেন। ঘটনার চমক এখানেই।

বিহারিলাল জানতেন, তার অ্যাকাউন্টে মাত্র ১২৬ টাকা পড়ে আছে। সেখান থেকে ১০০ টাকা তোলেন। তার পরই বিহারিলালের কাছে এসএমএস আসে— ‘আপনার ব্যাংক অ্যাকাউন্টে বাকি টাকার পরিমাণ ২ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা।’ এসএমএস পেয়ে চমকে উঠেছিলেন বিহারিলাল। পেশায় দিনমজুর, ইটভাটায় ঘাম-রক্ত ঝরিয়ে কাজ করে খান। তার অ্যাকাউন্টে এত টাকা এল কোথা থেকে?

ব্যাংকে দাঁড়িয়েই ভাল করে এসএমএসটা পড়েন বিহারিলাল। ঠিক দেখছেন তো? না কি কোথাও তার ভুল হচ্ছে? বিপুল টাকা তার অ্যাকাউন্টে কি আদৌ আছে? পরীক্ষা করার জন্য ব্যাংককর্মীকে অ্যাকাউন্ট বই দিয়ে দেখতে বলেন কত টাকা আছে! ব্যাংককর্মী বিহারিলালের অ্যাকাউন্ট দেখে জানান, ২ কোটি ৭০ লক্ষ টাকা আছে। তিন তিন বার অ্যাকাউন্ট পরীক্ষা করে দেখা হয়, প্রতি বারই টাকার একই অঙ্ক দেখাচ্ছিল।

ধন্দে পড়ে যান বিহারিলাল। এটা কি দিবাস্বপ্ন, না কি সত্যিই তার অ্যাকাউন্টে আড়াই কোটির বেশি টাকা আছে! এই দোলাচলের মধ্যে ব্যাংককর্মীকে আবার অ্যাকাউন্ট পরীক্ষা করে দেখতে অনুরোধ করেন তিনি। এ বার প্রমাণ হিসেবে বিহারিলালের হাতে অ্যাকাউন্ট স্টেটমেন্ট ধরিয়ে দেন ব্যাংককর্মী।

সেই স্টেটমেন্ট দেখে কিছুটা আশ্বস্ত হন বিহারিলাল। তবে মনের মধ্যে কোথাও একটা খচখচানি ছিলই। কেননা, এত টাকা কেউ তাকে দেবেন না। যাই হোক, একটু খচখচানি আর একটু সুখের মুহূর্তকে সঙ্গে করেই বাড়ির দিকে হাঁটা দেন বিহারিলাল। বাড়ি পৌঁছতেই তার কাছে ফোন আসে। বলা হয়, ‘মাফ করবেন, আপনার অ্যাকাউন্টে মাত্র ১২৬ টাকা আছে।’ ক্ষণিক হলেও তিনি যে আড়াই কোটি টাকার মালিক হয়েছিলেন, তাতেই খুশি বিহারিলাল।

বিহারিলালের অ্যাকাউন্টের খবর চাউর হতে বেশি সময় নেয়নি। ব্যাংকের এক শীর্ষ কর্তা অভিষেক সিন্‌হা জানান, ব্যাংকের প্রযুক্তিগত কোনও ভুলেই এমনটা হয়েছে। বিষয়টি নজরে আসার পরই ওই ব্যক্তির অ্যাকাউন্ট ক্ষণিকের জন্য বাজেয়াপ্ত করা হয়। তবে ওঁর অ্যাকাউন্টে ১২৬ টাকাই ছিল। ঘটনাটি উত্তরপ্রদেশের কনৌজের।

ফয//

সম্পর্কিত আরও খবর

আপনার মতামত দিন