হোম শিক্ষা ‘স্কুল খুলব পঞ্চগড়ে, ঢাকায় আসতে হবে মন্ত্রীর স্বাক্ষর লাগবে বলে’

‘স্কুল খুলব পঞ্চগড়ে, ঢাকায় আসতে হবে মন্ত্রীর স্বাক্ষর লাগবে বলে’

প্রতিবেদক সম্পাদকীয়
0 মন্তব্য

শিক্ষাসংক্রান্ত প্রশাসনিক কার্যক্রম অতিমাত্রায় কেন্দ্রীভূত হওয়া নিয়ে অসন্তোষ জানিয়েছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী। এসব কাজ ব্যাপকভাবে বিকেন্দ্রীকরণ করা প্রয়োজন বলে মনে করেন তিনি।

কেন্দ্রীভূত কীভাবে মানুষকে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে, তা বোঝাতে শিক্ষা উপমন্ত্রী বলেছেন, ‘স্কুল খুলব পঞ্চগড়ে, ঢাকায় আসতে হবে মন্ত্রীর স্বাক্ষর লাগবে বলে! দুর্নীতি নিরসনের জন্য আমরা এটি বোর্ডের (শিক্ষা বোর্ড) কাছ থেকে মন্ত্রণালয়ে নিয়ে এসেছি। কিন্তু খরচ কি কমেছে, নাকি বেড়েছে? বেড়েছে। সচিবালয়ে ঢুকতে যে কী কষ্ট, সেটি মন্ত্রীর পতাকা পাওয়ার আগপর্যন্ত আমারও কষ্টটা হতো।’

আজ বৃহস্পতিবার রাজধানীর গুলশানের একটি হোটেলে ‘আমাদের শিক্ষা বাজেটের গতিপ্রকৃতি ও আগামীর প্রত্যাশা’ শীর্ষক এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে শিক্ষা উপমন্ত্রী এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘সচিবালয়ে গিয়ে তদবির করে ফাইল তোলে…। প্রথমত একটি তদবির বোর্ড পর্যায়ে, তারপর সচিবালয় পর্যায়ে। এরপর (ফাইল) মন্ত্রী মহোদয় পর্যন্ত সেটি যেতে হবে। এই যে আমাদের অতিমাত্রায় কেন্দ্রীভূত মডেল, এই মডেল থেকে আমাদের সরে আসতে হবে। আমার মনে হয়, ব্যাপক বিকেন্দ্রীকরণ প্রয়োজন আছে।’

দেশের পুরো শিক্ষাব্যবস্থায় আর্থিক ও পারদর্শিতার বিষয়ে জবাবদিহি দরকার বলেও মনে করেন মহিবুল হাসান চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘আমরা প্রায়ই অনিয়ম-দুর্নীতির বিষয়ে শুধু আর্থিক প্রেক্ষাপট বেশি দেখছি। কিন্তু পারদর্শিতার পরিবীক্ষণে ঘাটতি আছে।’

গণসাক্ষরতা অভিযান ও এডুকেশন ওয়াচের উদ্যোগে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে সহযোগিতায় ছিল ইউনিসেফ ও ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন।

সম্পর্কিত আরও খবর

আপনার মতামত দিন